সারনা কোড, কুড়মালি ভাষার স্বীকৃতি: জায়গা নেই বিজেপির প্রেস মিটে

Our Voice, Recent

লালন কুমার মাহাত:
জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো| পুরুলিয়া জেলা বিজেপির সবোর্চ্চ পদাধিকারী | জেলার সাংসদ| সদ্য রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন তিনি| তিনি জঙ্গলমহলের ভূমিপুত্র, বিজেপির তরুণ তুর্কিও তিনি | জাতি কুড়মি| ধর্ম সারনা | লোকসভায় তার কণ্ঠে কুড়মি জাতভাইদের আবেগ পেতে ধ্বনিত হয় – জয় গরাম| ব্যাস , ওই টুকুই | আজকে সায়ন্তন বসু, বিদ্যাসাগর চক্রবর্তীর উপস্থিতিতে পুরুলিয়াতে প্রেস মিটে সাংসদের কাজ করার ক্ষমতা কতটা সেটা না বলে কাজ করার সীমা নির্ধারণ সম্পর্কেই বেশি ব্যাখ্যা দিয়েছেন তিনি |

সাংসদ দিল্লির মসনদেই কথা বলুক , দাবি তুলুক, আইন বানাক | কিন্তু নিজের মাতৃভাষা কুড়মালির সরকারি স্বীকৃতি, নিজের ধর্ম সারনার জন্য সেন্সাস এর আগে আলাদা কোড এবং নিজে আদিবাসী হওয়া সত্ত্বেও কুড়মি জাতির সাত দশক ধরে করে আসা দাবি এস,টি করার পরিপ্রেক্ষিতে কোনোদিন কোন দাবি তুলতে দেখা যায়নি ওনাকে | আজকে প্রেস মিটে কুড়মি সমেত অন্য কোনো আদিবাসী সম্প্রদায়ের কোন অধিকার নিয়ে সরব হতেও দেখা গেলোনা ওনাকে |

গত ৪ ঠা জুন বেশ ভালো ভাবে পুরুলিয়া সাংসদ কার্যালয়ে শিবাজী মহারাজের রাজ্যাভিষেক দিবসকে হিন্দু সাম্রাজ্য দিবস উদযাপন করেছেন তিনি | হিন্দু সাম্রাজ্য দিবস উদযাপন করে আর সারনা কোডের উপর অনীহা দেখিয়ে , কুড়মালি ভাষার উপর অনীহা দেখিয়ে, কুড়মি সমাজের মানুষজনদের এস,টি হওয়ার দাবিকে অনীহা দেখিয়ে কি ইঙ্গিত দিতে চাইছেন জ্যোতির্ময় সিং মাহাত?

পুরুলিয়া এখন বিজেপির কাছে পাখির চোখ | দুলাল কুমার, ত্রিলোচন মাহাত এদের নাম বার বার বিজেপির সব নেতা উচ্চারণ করলেও তাদের মৃত্যুতে দোষীদের শাস্তির ব্যবস্থা নিয়ে কেও কিছু বলেন না আর এখন| পুরুলিয়ার মানুষদের বঞ্চনা, দুরাবস্থার কথা মিডিয়া তুলে না ধরলেও অনেক জাতীয় মিডিয়া পুরুলিয়া ছুটে আসে ভোটের আগে -কেন এবং কাকে উপরে তুলতে সেটা ভাবার বিষয়| পুরুলিয়া থেকে ঝাড়গ্রাম রেল লাইন কবে হবে সেই নিয়েও চুপ সাংসদ জ্যোতির্ময়| পুরুলিয়াতে অনেক খনিজ সম্পদ পাওয়ার সম্ভাবনা আছে – কেন্দ্র সরকারের খনি মন্ত্রণালয় থেকে সেগুলো থেকে খনিজ উত্তোলনের কাজ শুরু করা নিয়েও কোন ব্যবস্থা তিনি গ্রহণ করেন নি | গতবছর সাংসদ হবার পরে তিনি দাবি করেছিলেন, পুরুলিয়ার ইস্পাত শিল্পের সম্ভাবনা নিয়ে কেউ কোনোদিন আলোচনা করে নাই। তাই সাংসদ হবার পরে সেটার জন্য চেষ্টা করার কথা ঘোষণা করে। এতে নাকি এলাকার বেকারদের সুরাহা হবে। কিন্তু পুরুলিয়া জেলার রঘুনাথপুর এলাকায় দুটো কারখানার জন্য নেওয়া জমি পড়ে থাকলেও, সেটাকে বাস্তবায়িত করতে সাংসদ একবছরে কোনো উদ্যোগই নেয়নি।

কাশ্মীর, পাকিস্তান এসবের গল্প শুনিয়ে পুরুলিয়ার কুড়মি, ভূমিজ, সাঁওতাল,বাউরি ইত্যাদি সম্প্রদায়ের ভোট নিতে গেলে মিথ্যা ধর্মীয় সুড়সুড়ি লাগে সেটা বোধহয় চেনা হয়ে গেছে সাংসদের| কিন্তু উন্নয়ন করবো বললেই তো আর করা যায়না | তার জন্য রূপরেখা তৈরী করতে হয় | সেই রূপরেখা কোথায়? কোটি টাকা দিয়ে পার্টি অফিস হচ্ছে, আদিবাসীদেরকে হিন্দু বানাতে গ্রামে গ্রামে মন্দির গজিয়ে উঠছে আর রাজ্য দখল না করলে সাংসদ উন্নয়ন করতে পারছেননা, একথা বোধ হয় বেশ বেমানান |

2 comments

  • সবেই ত লিখলে ব।উয়াকে ত কুড়মিরাও ভোট দিয়েছিল সব জানেই।একবার ভট যখন দিয়েছ ৫ বছর বসে থাকলেও কিছু করতে পারবে নাই ব।হাত কামড়াতে হবেক।বিধানসভায় আর কি কর।

  • মাননীয় লালন বাবু
    কুড়মিদের CRI report কেন্দ্র থেকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কাছে কয়েকটি কমেন্টের justification চেয়েছে কিন্তু এখনও অনেক দিন হল রাজ্য সরকার লিখে পাঠাই নি।
    কুড়মিদের পুনরায় ST করার জন্য আন্দোলন 71 বছর ধরে চলছে। কুড়মিদের কিছু টাঁইড় মূর্খ বুদ্ধি জীবি সমাজ পতিদের জন্য আজ আমাদের সমস্ত কুড়মি সমাজ অর্থ শিক্ষা পরিবেশ সব কিছু দিক দিয়ে শোষিত বঞ্চিত অবহেলিত তাঁরাই এর জন্য মূলত দায়ী। আজ আমরা সমস্ত কুড়মি সমাজের মানুষের একত্রিত করার চেষ্টা করে যাচ্ছি এবং গনতান্ত্রিক পদ্ধতিতে আন্দোলন করে যাচ্ছি আমাদের দাবি গুলি পাওয়ার জন্য।
    Joytirmoy sing Mahato মহাশয় সাংসদ হওয়া সবে মাত্র এক বছর হল। ইনার আগে পুরুলিয়া থেকে অনেক সাংসদ হয়েছেন তাঁরা তো কুড়মিদের নিয়ে কিছু বক্তব্য তুলে ধরতে লখ্য করা যায়নি।
    সৃষ্টিধর সরকার (কুড়মি)
    প্রাক্তন রাজ্য সম্পাদক
    পূর্বাঞ্চল আদিবাসী কুড়মি সমাজ

Leave a Reply