রামে অশান্তি, তাই গুরুপদ ভরসা মাত্র সার

Recent

লালন কুমার মাহাত:

(লেখাটি নিতান্তই হাস্যরস সৃষ্টি করতে লেখা , লেখার উদ্দেশ্য কাওকে আঘাত করা নয়)

কোন ‘বাবা’কে ‘বাবা’ বললে যেমন তার অর্থ পিতা হয়না, তেমনি পৃথিবীতে এক ‘দিদি’ আছেন তিনি খুড়ারও দিদি আর ভাইপোরও দিদি – তিনি পশ্চিমবঙ্গের শ্রদ্ধেয় মুখ্যমন্ত্রী | তিনি জননেত্রী| মানুষের জনপ্রিয়তা অর্জন করে সার তিন দশকের বাম দুর্গের চক্রব্যুহ ভেদ করে বছর দশক আগে ক্ষমতার আসনে আসীন হোন| জঙ্গলমহল যে সেই ঝড়ে, বর্ষায় প্লাবিত হয়নি তেমন ব্যাপার না | লাল দুর্গের কোনায় কোনায় সবুজ ঘাস গজিয়ে আসে | পুরুলিয়াতেও | দিদি তখন এক রামের মধ্যে শান্তি খুঁজে পেয়েছিলেন | সব কিছু ঠিকঠাকই চলছিল | কিন্তু এক এম.এ. পাশ চা-বালা দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর গেরুয়া বাহিনীর দাপাদাপি বাড়তে থাকে | শারীরিক কিছু অসুবিধা থাকায় জঙ্গলমহলের উন্নয়নের দায়িত্বে থাকা এক মন্ত্রী লকডাউন এর বাজারে খুব একটা বেশি বাইরে বেরোতে পারেননি, তাই দিদি একটু ক্ষেপে গেছেন |

ক্ষেপে যেতেই, জেলায় বাড়তে থাকা গেরুয়া রামভক্তদের ভয়ে সবুজ শিবিরের রামে আর শান্তি খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি| তাই হয়তো এখন ‘গুরুপদ ভরসা মাত্র সার’| কিন্তু সমস্যা হচ্ছে সবুজ রামে শান্তি খুঁজে না পাওয়ায় জয় গরাম বাহিনী খুব একটা খুশি নয়| সমস্যা আরও প্রবল হবে যদি রাম ও গরামের বন্ধুত্ব দিন দিন ভুল করে বেড়ে যায় | গরাম থেকে ‘গ’ শব্দটা উহ্য করতে পারলেই কেল্লাফতে হবে দিলুদাদের| ‘গ’ উহ্য হবে কি না সেটা সময়ই বলবে কিন্তু একটা ‘গো’কনেকশন ব্যবহার করে ভুল বোঝানো চলছে বেশ কিছু জায়গায়|

পুরুলিয়া জেলার এক শ্রীরাম সেনাপতি যিনি মাঝে মাঝে ‘শ্রী RUM ” হয়ে যান, তাঁকে প্রচার করতে দেখা গেছিলো যে নাকি জয় গরামের গো ভক্তি আর জয় শ্রীরামের গো ভক্তি নাকি একই জিনিষ| আর তার জন্যই নাকি বাঁদনা পরবে এতো উদযাপন গৃহপালিতদের সাথে| কিন্তু ওদেরকে কে বোঝাবে যে ব্যাপারটা সেরকম নয় | পরবটার নাম সোহরায় – সহকারী দেবতাদেরকে সম্মান জানানো – গরু, মোষ নির্বিশেষে| মোষের দুধে সোনা পাওয়া যায় বলে দিলুদা বলেনি|

যায় হোক ”গুরুপদ” ভরসা কতটা সার্থক হবে সেটা সময়ই বলবে | জয় গরমের ”গ” উহ্য না হলেই হলো | সবুজ শিবিরের রামের উপর দিদির অশান্তি গেরুয়া শিবিরের রাম বাহিনীর শান্তির কারণ না হলেই হলো |

Leave a Reply